হাদীছের তত্ত্ব ও ইতিহাস

১৯৫। মাওলানা মুহিব্বুর রহমান ছাহেব

মাওলানা মুহিব্বুর রহমান ইবনে কারী ছমীরউদ্দীন ১৩১২ বাং কুমিল্লা জিলার লাকসাম থানাধীন ফেনুয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি যথাক্রমে পশ্চিমগাঁও ফয়েজিয়া মাদ্রাছায় ও বট্টগ্রাম হামিদিয়া মাদ্রাছায় জমাতে হাফতম ও জমাতে পাঞ্জম পর্যন্ত শিক্ষা লাভ করেন এবং ঢাকা হাম্মাদিয়া মাদ্রাছা হইতে উলা পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেন। অতঃপর তিনি রামপুর আলিয়া মাদ্রাছায় দরজায়ে দুয়ম পর্যন্ত এবং দেওবন্দ দারুল উলুমে তফছীর ও হাদীছ অধ্যয়ন করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী প্রমুখ মোহাদ্দেছ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

তিনি প্রথমে ময়মনসিংহের তারাকান্দি ছিনিয়র মাদ্রাছায় ৭/৮ বৎসর, বট্টগ্রাম মাদ্রাছায় দুই বৎসর ও সিরাজগঞ্জ ছিনিয়র মাদ্রাছায় ৯ বৎসরকাল সুপারেন্টেণ্ডেন্ট ছিলেন। ১৯৫১ ইং হইতে তিনি ফেনী আলিয়া মাদ্রাছার মোহাদ্দেছ। তিনি হযরত মাওলানা মদনীর একজন খলীফা ও ছূফী প্রকৃতির আলেম।

১৯৬। মাওলানা মুহিব্বুর রহমান ছাহেব।

তিনি ১৯৫৪ হিঃ চট্টগ্রাম জিলার ফটিকছড়ি থানাধীন বাবুনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন, পিতার নাম মাওলান হারুন ছাহেব (বাবুনগর মাদ্রাছার মোহতামেম)। তিনি প্রাথমিক কিতাব হইতে শরহে বেকায়া পর্যন্ত বাবুনগর মাদ্রাছায়, অতঃপর এক বৎসরকাল হাটহাজারী মাদ্রাছায় অধ্যয়ন করেন। ফনুনাত ও হাদীছের উচ্চ শিক্ষা তিনি দেওবন্দে লাভ করেন। মাওলানা ফখরুদ্দীন মোরাদাবাদী ও মাওলানা ইব্রাহীম বৈলয়াবী তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

১৯৫৭ ইং শিক্ষা সমাপ্ত করার পর তিনি বাবুনগর আজীজুল উলুম মাদ্রাছায় শিক্ষাদান কার্যে আত্মনিয়োগ করেন। বর্তমানে তিনি তথায় বিভিন্ন বিষয় ও হাদীছ শিক্ষা দিতেছেন।

১৯৭। মাওলানা মাহমুদুল হাছান ছাহেব

তিনি ময়মনসিংহ জিলার মুক্তাগাছা থানাধীন জয়দা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি দারুল উলুম দেওবন্দে ফনুনাত ও হাদীছ অধ্যয়ন করেন।

স্বদেশ ফিরিয়া তিনি মুক্তাগাছা আলিয়া মাদ্রাছায় অধ্যাপনা কার্যে আত্মনিয়োগ করেন। ‘গোলজারে ছুন্নত’ নামে তাঁহার একখানা বাংলা কিতাব রহিয়াছে।

১৯৮। মাওলানা মোহাম্মদ আলী ছাহেব

তিনি ময়মনসিংহ জিলার গফরগাঁও থানার অন্তর্গথ খুরশীদমহল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতার নাম মরহুম মোহাম্মদ আব্বাছ আলী। তিনি যথাক্রমে পাঁচবাগ ছিনিয়র মাদ্রাছায় ও কলিকাতা আলিয়া মাদ্রাছায় শিক্ষা লাভ করেন, অতঃপর দেওবন্দ দারুল উলুম হইতে হাদীছের ছনদ হাছেল করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী, মাওলানা ইব্রাহীম বৈলয়াবী, মাওলানা এ’জাজ আলী, মাওলানা ছৈয়দ আছগর হোছাইন ও মাওলানা মুফতী শফী ছাহেব প্রমুখ তাঁহার তথাকার ওস্তাদ।

তিনি প্রথমে পাঁচবাগ ছিনিয়ম মাদ্রাছায়, অতঃপর পাকুন্দিয়া হাই মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। পুনরায় কিছুদিন পাঁচবাগ মাদ্রাছায়, অতঃপর পাকুন্দিয়া হাই মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। পুনরায় কিছুদিন পাঁচবাগ মাদ্রাছায় শিক্ষাদানের পর কিশোরগঞ্জ জামেয়া এমদাদিয়ায় যোগদান করেন। বর্তমানে তিনি তথাকার মোহাদ্দেছ।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘কোরআন মজীদের বঙ্গানুবাদ’ [১০ পারা]।

২। ‘নামাজের দার্শনিক ব্যাখ্যা’।

৩। ‘একটি হালাল রুজী’

৪। ‘মানবের আদর্শ মোহাম্মদ (ছঃ)’।

১৯৯। মাওলানা মোহাম্মদ আলী ছাহেব

মাওলানা মোহাম্মদ আলী ইবনে মরহুম মুনশী করম আলী কুমিল্লা জিলার নাগাইশ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি প্রথমে স্থানীয় মাদ্রাছায় জমাতে পাঞ্জম পর্যন্ত শিক্ষা গ্রহণ করেন, অতঃপর দারুল উলুম  দেওবন্দে ফনুনাত ও হাদীছ অধ্যয়ন করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী প্রমুখ মোহাদ্দেছ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

তিনি প্রথমে ঢাকা আশরাফুল উলুম মাদ্রাছায় হাদীছ শিক্ষাদান ও ফতওয়া বিভাগে কাজ করেন। অতঃপর যথাক্রমে হয়বতনগর আলিয়া মাদ্রাছা এবং কিছুদিন বালিয়া আশরাফুল উলুমে হাদীছ শিক্ষা দেন। তৎপর তিনি দীর্ঘদিন কিশোরগঞ্জ জামেয়া এমদাদিয়া শায়খুল হাদীছ ছিলেন। বর্তমানে তিনি বালিয়া আশরাফুল উলুম মাদ্রাছার শায়খুল হাদীছ।

২০০। মাওলানা হাফেজ মোহাম্মদ উল্লাহ ছাহেব

তিনি নোয়াখালী জিলার রায়পুর থানাধীন লুধুয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতার নাম মরহুম মোহাম্মদ ইদ্রীছ মিঞা। তিনি হিন্দুস্তানের পানিপথে কোরআন মজীদ হেফজ করেন এবং ক্বারী আবদুল আলীম ইবনে ক্বারী আবদুর রহমান মোহাদ্দেছ পানিপথির নিকট সাত কেরাআত শিক্ষা করেন। তিনি ৭ বৎসরকাল যথাক্রমে দারুল উলুম দেওবন্দে ও সাহারনপুর মাজাহেরে উলুমে ফনুনাত ও হাদীছ অধ্যয়ন করেন। মাওলানা হাফেজ আবদুল লতীফ ছাহেব, মাওলানা আবদুর রহমান কামেলপুরী ও মাওলানা মঞ্জুর আহমদ সাহারনপুরী তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। তিনি সাড়ে পাঁচ বৎসরকাল হাকীমুল উম্মত হজরত মাওলানা আশরাফ আলী থানবী (রঃ)-এর খেদমতে থাকিয়া এলমে মা’রেফাতের খেলাফত হাছেল করেন।

শিক্ষা সমাপনান্তে তিনি ৪ বৎসরকাল ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া, অতঃপর দীর্ঘ দিন ঢাকা আশরাফুল উলুম মাদ্রাছায় হাদীছ প্রভৃতি এলম শিক্ষা দেন। বিগত চৌদ্দ বৎসর যাবৎ তিনি ঢাকা আশরাফুল উলুম মাদ্রাছায় হাদীছ প্রভৃতি এলম শিক্ষা দেন। বিগত চৌদ্দ বৎসর যাবৎ ঢাকা লালবাগ জামেয়া কোরআনিয়ার মোহাদ্দেছ। তিনি একজন সরল প্রকৃতির ছূফী আলেম ও কামেল মোরশেদ।

২০১। মাওলানা মোহাম্মদ হোছাইন সিলেটী

‘বাহরুল উলুম’ মাওলানা আবুল মোহাম্মদ হোছাইন ইবনে মৌলবী আশরাফ আলী ১৮৯০ ইং সালে সিলেট জিলার অন্তর্গত নিজপাট জয়ন্তিয়াপুর নাকম স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি যথাক্রমে ঝিঙ্গাবাড়ী ও জালালপুর মাদ্রাছায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করেন এবং জমাতে পাঞ্জমের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় আসাম বোর্ডে প্রথম স্থান অধিকার করিয়া সরকারী বৃত্তি লাভ করেন। ১৯২২ ইং সালে তিনি কলিকাতা আলিয়া মাদ্রাছায় ভর্তি হন। তথা হইতে তিনি যথাক্রমে জমাতে ছুয়াম ও উলা পাস করেন এবং ১৯১৯ ইং সালে ‘ফখরুল মোহাদ্দেছীন’ ডিগ্রী লাভ করেন। ‘মোল্লা ছাহেব’ মাওলানা ছফীউল্লাহ, শামছুল ওলামা মাওলানা নাজের হাছান,মাওলানা ইছহাজ বর্ধমানী, মাওলানা আবদুল ওহহাব বিহারী, মাওলানা আবদুল্লাহ টংকী, মাওলানা ইয়াহইয়া ছাহছারামী ও মাওলানা আমীর আলী মলীহাবাদী প্রমুখ তাঁহার কলিকাতা আলিয়া মাদ্রাছার ওস্তাদ। পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হইবার পরবর্তী দিনই (১৯১৯ ইং সালে) তিনি কলিকাতা আলিয়া মাদ্রাছার অধ্যাপক নিযুক্ত হন এবং একাধানে ২৫ বৎসরকাল সুনামের সহিত হাদীছ প্রভৃতি এলম শিক্ষা দান করেন। শেষ সময়ে তিনি একমাত্র হাদীছ শিক্ষা দানেই রত ছিলেন। তিনি কিতাব সম্মুখে রাখিয়া হাদীছ শিক্ষা দিতেন না; বরং কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকের ন্যায় ভাষণের মাধ্যমেই শিক্ষঅ দিতেন। তাঁহার স্মরণশক্তি অত্যন্ত প্রখর। ইংরেজী ভাষা না জানা সত্ত্বেও ১৯৪৪ ইং সালে তিনি সিলেট গভঃ আলিয়া মাদ্রাছার প্রিন্সিপাল নিযুক্ত হন এবং ১৯৫৪ ইং সালে তথা হইতে অবসর গ্রহণ করেন।

তিনি বিভিন্ন বিষয়ে ব্যাপক জ্ঞানের অধিকারী আলেম ও দক্ষ মোহাদ্দেছ। জ্ঞানচর্চা ও কিতাবপত্র পাঠে তাঁহার অনুরাগ অন্তহীন। তাঁহার একটি নিজস্ব বিরাট লাইব্রেরী আছে। উহাতে বহু দুষ্প্রাপ্য কিতাব ও মূল্যবান পাণ্ডুলিপি মজুদ আছে। ইহার একাংশ ঢাকা পাবলিক লাইব্রেরীতে স্থানান্তরিত হইয়াছে।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘শরহে তিরমেজী’ (আরবী*********)।।

২। ‘আল এনকাদ’ (আরবী*********)।

৩। ‘হাশিয়ায়ে কা’বাইন’ (আরবী*********)।

৪। ‘হাশিয়ায়ে মানতেকুতত্বাইর’ (আরবী*********) [প্রকাশিত]।

৫। ‘হামেশায়ে মোছতাতরফ’ (আরবী*********) [প্রকাশিত]।

৬। ‘তা’লীকুল খাজাহ’ (আরবী*********)।

৭। ‘আশহারে মাশাহিরুল ইছলাম’ (আরবী*********)।

৮। ‘কোরআনতত্ত্ব’ [বাংলা]।

১০২। মাওলানা মোয়াজ্জম হাছান রেজওয়ানী

মাওলানা আবু হানীফা মোহাম্মদ মোয়াজ্জম হাছান ইবনে মৌলবী রেজওয়ানুদ্দীন ১৯১০ ইং সিলেট জিলার অন্তর্গত বানিয়াচং গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি তদীয় পিতার তত্ত্বাবধানে আলিয়া মাদ্রাছা হইতে যথাক্রমে ১৯৩৮ ইং ও ১৯৩৯ ইং কামেল ফেকাহ ও কামেল হাদীছ পাস করেন।

শিক্ষা লাভের পর তিনি যথাক্রমে যশোরের বরুরিয়া, কুমিল্লার ধরমন্ডল ও কিশোরগঞ্জ জামেয়া এমদাদিয়ায় শিক্ষকতা করেন। বর্তমানে তিনি কাতলাসেন আলিয়া মাদ্রাছার মোহাদ্দেছ।

(র)

২০৩। মাওলানা রেজাউল করীম ছাহেব

তিনি চট্টগ্রাম জিলার পটিয়া থানাধীন হরিণখায়েন গ্রামে ১৩৩৮ বাং জন্মগ্রহণ করেন, পিতার নাম আবদুল গফুর সওদাগর। তিনি ‘শরহে জামী’ পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষা জিরী মাদ্রাছায় গ্রহণ করেন, অতঃপর দারুল উলুম দেওবন্দে উচ্চ পর্যায়ের ফনুনাত ও হাদীছ শিক্ষা করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী, মাওলানা এ’জাজ আলী ও মাওলানা ইব্রাহীম বৈলয়াবী প্রমুখ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। ১৩৭২ হিঃ তিনি দেওবন্দে শিক্ষা সমাপ্ত করেন।

তিনি প্রথমে তিন মাসকাল ফরিদপুর গওহরডাঙ্গা মাদ্রাছায়, ১৩৭৩-৭৪ হিঃ দুই বৎসর ঢাকা আশরাফুল উলুম মাদ্রাছায়, ১৩৭৫ হিঃ পটিয়া জমিরিয়া মাদ্রাছায় এবং ১৩৭৬ হিঃ চট্টগ্রাম মাজাহেরে উলুমে ফনুনাত ও হাদীছ শিক্ষা দেন। বর্তমানে (১৩৮৪ হিঃ) তিনি উহার মোহতামেম। তিনি একজন বিজ্ঞ আলেম ও দ্বীনের সেবক। তিনি শাহ ওলীউল্লাহ দেহলবীর ‘কাছীদায়ে বায়ীয়া’ ও ‘কাছীদায়ে হামজিয়া’-এর অনুবাদ করিয়াছেন।

২০৪। মাওলানা রেজাউল হক ছাহেব।

তিনি নোয়াখালী জিলার বরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতা মাওলানা ফয়েজুল হক ক্বারী ইব্রাহীম ছাহেবের একজন খলীফা ছিলেন। তিনি প্রথমে বটতলী মাদ্রাছায় জামতে পাঞ্জম পর্যন্ত শিক্ষা গ্রহণ করিয়া ১৯৪৪ ইং নোয়াখালী ইছলামিয়া মাদ্রাছায় ভর্তি হন। তথা হইতে তিনি জামেয়া পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেন এবং আলেম, ফাজেল পরীক্ষায় সরকারী বৃত্তি লাভ করেন। ১৯৫০ ইং তিনি প্রথম হইয়া ঢাকা আলিয়া মাদ্রাছা হইতে ‘মোমতাজুল মোহাদ্দেছীন’ ডিগ্রী লাভ করেন, অতঃপর দেওবন্দ দারুল উলুম হইতে পুনরায় হাদীছের ছনদ হাছেল করেন। স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করিয়া তিনি ‘তফছীরে ইবনে আব্বাছ’ সম্বন্ধে রিসার্চ করেন। অতঃপর তিনি ঢাকা আলিয়া মাদ্রাছা হইতে ‘মোমতাজুল ফোকাহা’ পরীক্ষায় শীর্ষস্থান অধিকার করেন। ঢাকা আলিয়ায় মাওলানা আমীমুল এহছান প্রমুখ ও দেওবন্দের তৎকালীন মোহাদ্দেছগণ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

শিক্ষা সমাপনান্তে তিনি অস্থায়ীভাবে কিছুদিন ঢাকা আলিয়া মাদ্রাছার শিক্ষক অতঃপর ১ বৎসরকাল ঢাকা হাম্মাদিয়া মাদ্রাছার প্রধান শিক্ষক ছিলেন। ১৯৫৪ ইং তিনি স্থায়ীভাবে আলীয়া মাদ্রাছায় অধ্যাপক নিযুক্ত হন।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘তা’লীমুল ফেকাহ’ (আরবী*********)।

২। ‘কিতাবুল ফেকাহ’ (আরবী*********)।

৩। ‘আল আদাবুল মুফীদ’ (আরবী*********)।

৪। ‘আনওয়ারুল বয়ান’ (আরবী*********)।

২০৫। মাওলানা রমজান আলী ছাহেব

তিনি অনুমান ১৯১০ ইং ঢাকা জিলার ধামরাই থানাধীন পাঁচলখী গ্রামে (পোঃ চৌহাট) জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতার নাম মরহুম মোহাম্মদ খোদা বখশ। স্থানীয় বিভিন্ন মাদ্রাছা হইতে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করিয়া তিনি ঢাকা হাম্মাদিয়া মাদ্রাছা হইতে যথাক্রমে ১৯৩০ ইং ও ১৯৩২ ইং আলেম ও ফাজেল এবং ১৯৩৪ ইং কলিকাতা আলিয়া মাদ্রাছা হইতে কামেল পাস করেন। মাওলানা ইয়াহইয়া, মাওলানা মোশতাক আহমদ, মাওলানা মোহাম্মদ হোছাইন সিলেটী ও মাওলানা বেলায়েত হোছাইন বীরভূমী প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

১৯৩৫ ইং তিনি ময়মনসিংহের কাজীবাড়ী বশীরুল ইছলাম ছিনিয়র মাদ্রাছায় দুই মাস ও সিরাজগঞ্জ ছিনিয়র মাদ্রাছায় ১ বৎসরকাল যথাক্রমে হেড মাওলানা ও সহকারী হেড মাওলানার পদে কাজ করেন। অতঃপর কামারখন্দ আলিয়া মাদ্রাছায় ১৯৩৬-৪৩ ইং হেড মাওলানা ও ১৯৪৩-৪৫ ইং সুপারেন্টেণ্ডেন্ট ছিলেন। তৎপর তিনি শরিষাবাড়ী আরামনগর ছিনিয়র (বর্তমানে আলিয়া) মাদ্রাছায় সুপারেন্টেণ্ডেন্ট পদে নিযুক্ত হন। ১৯৫৯-৬১ ইং তিনি শরিষাবাড়ী আরামনগর আলিয়া মাদ্রাছার প্রিন্সিপাল।

২০৬। মাওলানা রহমত উল্লাহ ছাহেব

তিনি সিলেট জিলার তালবাড়ী (পোঃ আলীনগর) গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতার নাম মরহুম মোহাম্মদ আকীল। তিনি প্রথমে ঝিঙ্গাবাড়ী মাদ্রাছায় শিক্ষা গ্রহণ করেন, অতঃপর দারুল উলুম দেওবন্দ হইতে দাওরা পাস করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী, মাওলানা ইব্রাহীম বৈলয়াবী, মাওলানা ছৈয়দ আছগর হোছাইন, মাওলানা এ’জাজ আলী ও মাওলানা মুফতী শফী ছাহেব প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। বর্তমানে তিনি কিশোরগঞ্জ জামেয়া এমদাদিয়ায় হাদীছ শিক্ষা দিতেছেন।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘আল হাদীয়াতুল মারজিয়াহ’ (আরবী*********)।

২। ‘আলী এফাজাতুল আজীজিয়াহ’ (আরবী*********)।

৩। ‘আল জালালী’ (আরবী*********)।

৪। ‘তোহফাতুল ক্বারী’ (আরবী*********)।

২০৭। মাওলানা রুহুল আমীন ছাহেব

মাওলানা রুহুল আমীন ইবনে আলী আহমদ নোয়াখালী জিলার হাতিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি প্রথমে টুমচর ছিনিয়র মাদ্রাছায় শিক্ষা লাভ করেন, অতঃপর ঢাকা আলিয়া মাদ্রাছা হইতে হাদীছে কামেল পাস করেন। মাওলানা মুফতী ছৈয়দ আমীমুল এহছান প্রমুখ মোহাদ্দেছ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। বর্তমানে তিনি মাদারীপুর আহমদিয়া আলিয়া মাদ্রাছার মোহাদ্দেছ।

২০৮। মাওলানা রুহুল আমীন ছাহেব

তিনি নোয়াখালী জিলার ফেনী থানাধীন গজারিয়া গ্রামে ১৯৪৩ ইং জন্মগ্রহণ করেন, পিতার নাম মুনশী আবদুল বারী। তিনি প্রাথমিক শিক্ষা তাঁহার দাদা মুনশী আহমদ ছাহেবের নিকট ও স্থানীয় প্রাইমারী স্বুলে লাভ করেন। ১৯৫৪ ইং তিনি দাগনভুঁইয়া মাদ্রাছায় ভর্তি হন, অতঃপর নেজামপুর ছূফিয়া নূরিয়া ও ফেনী আলিয়া মাদ্রাছায় কিছু দিন অধ্যয়ন করেন। ১৯৬১ ইং তিনি সোনাগাজী ছিনিয়র মাদ্রাছা হইতে মাদ্রাছা শিক্ষা বোর্ডে প্রথম স্থান অধিকার করিয়া ফাজেল পাস করেন। টাইটেল প্রথম বৎসর নোয়াখালী ইছলামিয়া আলিয়া মাদ্রাছায় এবং দ্বিতীয় বৎসর ফরিদপুরের বাহাদুরপুর শরীয়তিয়া মাদ্রাছায় অধ্যয়ন করেন এবং ১৯৬৩ ইং কৃতিত্বের সহিত শেষ পরীক্ষায় পাস করেন। মাওলানা আবদুল গনী ছাহেব, মাওলানা কাছেম ও মাওলানা আমীন খাঁ সন্দ্বীপী প্রমুখ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

এতদ্ব্যতীত টাইটেল প্রথম বৎসরের সহিত তিনি কুমিল্লাহ সেকেণ্ডারী বোর্ড হএত মেট্রিকুলে আলিয়া মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। বর্তমানে তিনি শাহতলী আলিয়া মাদ্রাছার মোহাদ্দেছ। তিনি একজন অসাধারণ মেধাসম্পন্ন আলেম।

২০৯। মাওলানা রিয়াছত আলী ছাহেব

তিনি ১৩২০ হিঃ সিলেট জিলারগোলাপগঞ্জ থানাধীন রাণাপিং পরগণায় একডুমা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতার নাম মরহুম হাজের। তিনি সিলেট জিলার ফুলবাড়ী আলিয়া মাদ্রাছায় ফনুনাতে প্রাথমিক কিতাবাদি অধ্যয়ন করেন, অতঃপর দারুল উলুম দেওবন্দে উচ্চস্তরের ফনুনাত ও হাদছ শিক্ষা করেন। মাওলানা আনওয়ার শাহ কাশ্মীরী, মাওলানা শিব্বীর আহমদ ওছমানী, মাওলান ছৈয়দ আছগর হোছাইন ও মাওলানা রাছূল খাঁ প্রমুখ মনীষীগণ তাঁহার ফনুনাত ও হাদীছের ওস্তাদ।

স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করিয়া তিনি রাণপিং মাদ্রাছা প্রতিষ্ঠা করেন। তাঁহার চেষ্ঠার ফলেই উহাতে হাদীছে দাওরা খোলা হয়। বর্তমানে তিনি উক্ত মাদ্রাছার প্রধান পরিচালক ও মোহাদ্দেছ। তিনি একজন বহুদর্শী, নিষ্ঠাবান ও ছূফী প্রকৃতির আলেম। খেলাফত আন্দোলন ও আজাদী আন্দোলনে তিনি সক্রিয় অংশগ্রহণ করিয়াছিলেন।

(ল)

২১০। মাওলানা লোকমান ছাহেব

তিনি ময়মনসিংহ জিলার বোরারচর নয়াপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম মরহুম আমীরুদ্দীন খলীফা। ফনুনাত ইত্যাদি বিষয় তিনি হাটহাজারী মাদ্রাছায় এবং হাদীছ সহারনপুর মাজাহেরে উলুমে শিক্ষা করেন। মাওলানা আবদুল লতীফ প্রমুখ মোহাদ্দেছ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। বর্তমানে বালিয়া আশরাফুল উলুম মাদ্রাছায় হাদীছ শিক্ষা দিতেছেন।

২১১। মাওলানা লুৎফুল হক এম,এ,

তিনি ১৯০৮ ইং ২রা মার্চ সিলেট জিলার অন্তর্গত বালাগঞ্জ থানাধীন ছোলতানপুর (পোঃ গহরপুর) গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি প্রথমে সিলেট আলিয়া মাদ্রাছা হইতে ফাজেল পাস করেন, অতঃপর কলিকাতা আলিয়া মাদ্রাছা হইতে ‘ফখরুল মোহাদ্দেছীন’ ছনদ লাভ করেন। তৎপর তিনি বিশ্ববিদ্যালয় হইতে এম,এ, ডিগ্রী লাভ করেন। মাওলানা মাজেদ আলী ও মাওলান ইয়াহইয়া প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। বর্তমানে তিনি সিলেট গভঃ আলিয়া মাদ্রাছার প্রিন্সিপাল।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘হেমায়েতুল নুহু’ (আরবী*********)।

২। ‘বেদায়েতুল হেকমত’ (আরবী*********)।

৩। ‘মোনতাখাবুল মা’কুলাত’ (আরবী*********)।

৪। ‘লাতায়েফ’ (আরবী*********)।

৫। ‘মনুষ্যত্ব শিক্ষা’।

৬। ‘বকরা ঈদ’

৭। ‘শবে বরাত’

৮। ‘রমজান’।

(শ)

২১২। মাওলানা শুজাউদ্দীন ছাহেব

তিনি রাজশাহী জিলার বাসুদেবপুরের অধিবাসী। তিনি দিল্লী দারুল হাদীছ রহমানিয়ায় ফনুনাত ও হাদীছ অধ্যয়ন করেন। মাওলানা আহমদুল্লাহ মরহুম তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ। তিনি কিছুদিন ঢাকা ‘মাদ্রাছাতুল হাদীছে’ হাদীছ শিক্ষা দেন। বর্তমানে তিনি রাজশাহীর চাঁপাইনওয়াবগঞ্জ মাদ্রাছায় হাদীছ প্রভৃতি এলম শিক্ষা দিতেছেন।

২১৩। মাওলানা মোহাম্মদ শফী ছাহেব

মাওলানা মোহাম্মদ শফী ইবনে মৌলবী ওবাইদুল হক ছাহেব ১৩৫৩ হিঃ চট্টগ্রাম জিলার ফটিকছড়ি থানাধীন আজীমপুর (পোঃ বরন্দাবুন হাট) গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি চরচাক্তাই মাজাহেরে উলুমে প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন, অতঃপর হাটহাজারী মুঈনুল ইছলামে ফনুনাত ও হাদীছ অধ্যয়ন করেন।

১৩৭৯ হিঃ তিনি শিক্ষা সমাপ্ত করিয়া শিক্ষকতা কার্যে আত্মনিয়োগ করেন। বর্তমানে তিনি যশোহর রেল ষ্টেশন মাদ্রাছার মোহাদ্দেছ।

২১৪। মাওলানা মোহাম্মদ শফীকুল্লাহ আফছারী

আবুল বাশার মোহাম্মদ শফীকুল্লাহ ইবনে মরহুম হাবীবুল্লাহ আফছারী নোয়াখালী জিলার বশিকপুর গ্রামের উমেদপুর বাড়ীতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি প্রথমে নোয়াখালী ইছলামিয়া মাদ্রাছা হইতে ফাজেল পাস করেন, অতঃপর দেওবন্দ দারুল উলুম হইতে হাদীছেল ছনদ হাছেল করেন। তাছাড়া তিনি লাহোর ইউনিভারসিটি হইতে ‘মৌলভী ফাজেল’ ডিগ্রী লাভ করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইব আহমদ মদনী, মাওলানা এ’জাজ আলী ও মাওলানা ইব্রাহীম বৈলয়াবী প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহর হাদীছের ওস্তাদ।

শিক্ষা সমাপ্ত করার পর তিনি বাংলার বিভিন্ন মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। বর্তমানে তিনি শর্ষিণা আলিয়া মাদ্রাছার মোহাদ্দেছ।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘নাজমুদ দুরারী’ [বোখারী শরীফের টীকা]

২। ‘ছুল্লাম’ [মোছাল্লামের শরাহ]

৩। ‘দুরুছুল আদব’।

২১৫। মাওলানা শফীকুল হক ছাহেব

তিনি অনুমান ১৯১৭ ইং সিলেট জিলার কানাইঘাট থানাধীন দলৈরকান্দি (গাছবাড়ী) মৌজায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতার নাম মাওলানা মোহাম্মদ ইব্রাহীম। তিনি মরিলহাট মাদ্রাছায় প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করিয়া যথাক্রমে গাছবাড়ী ও সিলেট গভঃ আলিয়া মাদ্রাছা হইতে ফাজেল ও হাদীছে কামেল পাস করেন, অতঃপর দেওবন্দ দারুল উলুম হএত হাদীছের পুনঃ ছনদ লাভ করেন। মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী প্রমুখ মোহাদ্দেছ তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

স্বদেশ ফিরিয়া তিনি প্রথমে গাছবাড়ী মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। ১৯৫৪ ইং হইতে তিনি কানাইঘাট দারুল উলুম মাদ্রাছায় হাদীছ শিক্ষাদানে আত্মনিয়োগ করেন।

২১৬। মাওলানা শফীকুল হক ছাহেব

মাওলানা শফীকুল হক ইবনে আবদুল ওহহাব ১৩৪৭ হিঃ সিলেট জিলার কানাইঘাট থানাধীন ধলিবিল দক্ষিণ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নিজ বাড়ীতেই প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করিয়া ১৯৩৬ ইং গাছবাড়ী মাদ্রাছায় প্রবেশ করেন এবং তথা হইতে ১৯৪৭ ইং সরকারী বৃত্তি সহকারে ফাজেল পাস করেন। ১৯৪৯ ইং তিনি সিলেট আলিয়া মাদ্রাছা হইতে হাদীছে কামেল পাস করেন। ১৯৪৯-৫১ ইং তিনি কানাইঘাট মনছুরিয়া মাদ্রাছায় ও ১৯৫২-৫৫ ইং গাছবাড়ী জামেউল উলুম মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। তৎপর তিনি দেওবন্দ দারুল উলুমে গমন করেন এবং তথা হইতে হাদীছের পূনঃ ছনদ হাছেল করেন। মাওলানা মোহাম্মদ হোছাইন সিলেটী ও মাওলানা ছৈয়দ হোছাইন আহমদ মদনী প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

স্বদেশ ফিরিয়া তিনি ১৩৭৬ হিঃ গাছবাড়ী আলিয়া মাদ্রাছায় শিক্ষকতা কার্যে আত্মনিয়োগ করেন। বর্তমানে তিনি উক্ত মাদ্রাছার ২য় মোহাদ্দেছ।

তাঁহার রচনাবলীঃ

১। ‘নায়লুল মোরাদ’ (আরবী*********)।

২। ‘তোহফাতুল মারজান’ (আরবী*********)।

৩। ‘দুরারুল আখবার’ (আরবী*********)।

২১৭। আলহাজ্জ মাওলানা শামছুল হক (ফরিদপুরী)

তিনি ১৩০১ বাং মোঃ ১৮৯৫ ইং ফরিদপুর জিলার গোপালগঞ্জ থানার গোপের ডাঙ্গা (নূতন নাম গওহরডাঙ্গা) গ্রামে এক দ্বীনদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতা মুনশী মোহাম্মদ আবদুল্লাহ হজরত ছৈয়দ আহমদ বেরেলবী প্রবর্তিত সীমান্তের শিখ-ইংরেজ বিরোদী জেহাদে পরবর্তী অধ্যায়ে যোগদান করেন।

তিনি স্থানীয় হিন্দু পাঠশালায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করিয়া কলিকাতা মাদ্রাছার এংলোপার্সিয়ান বিভাগ হইতে মেট্রিক পাস করেন, অতঃপর প্রেসিডেন্সি কলেজে পড়ার কালে কলেজ ত্যাগ করিয়া সোজা থানাবোনে হাকীমুল উম্মত হজরত মাওলানা আশরাফ আলী থানবীর খেদমতে উপনীত হন। তথা হইতে সাহারনপুর মাজাহেরে উলুমে যাইয়া ইছলামিয়াতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা এবং দারুল উলুম দেওবন্দে উহার উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করেন। হাদীছ তিনি আল্লামা আনওয়ার শাহ কাশ্মীরী (তিরমিজীর ২১ ছবক), শায়খুল ইছলাম মাওলানা মদনী, ‘মিঞা ছাহেব’ ছৈয়দ আছগর হোছাইন দেওবন্দী ও মাওলানা এ’জাজ আলী ছাহেবের নিকট অধ্যয়ন করেন। এলমে বাতেন তিনি হজরত মাওলানা থানবী হইতে হাছেল করেন এবং উহার ‘এজাজত’ হজরত মাওলানা জফর আহমদ ওছমানী ও হজরত মাওলানা আবদুল গনী প্রমুখ মনীষীগণ হইতে লাভ করেন।

তিনি ১৯৩০-৩৫ ইং পাঁচ ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাছায়, অতঃপর ঢাকা আশরাফুল উলুম মাদ্রাছা প্রতিষ্ঠা করিয়া ১৯৩৬-৫০ ইং পর্যন্ত ১৫ বৎসরকাল তথায় হাদীছ শিক্ষা দেন। ১৯৫১ ইং তিনি ঢাকার লালবাগ জামেয়া কোরআনিয়া আরাবিয়ার ভিত্তি স্থাপন করেন। বর্তমানে তিনি উহার শায়খুল জামেআ।

তিনি একজন গভীর জ্ঞানী আলেম, দ্বীন ও কওমের একনিষ্ঠ সেবক এবং বিখ্যাত মোহাদ্দেছ ও খাটিঁ পীর। তাঁহার বহু শাগরেদ ও মুরীদ রহিয়াছে। তিনি বাংলাভাষায় অর্ধশতকেরও অধিক কিতাব লিখিয়াছেন। নিম্নে তাঁহার কতিপয় প্রসিদ্ধ কিতাবের নাম দেওয়া গেল।

১। ‘বেহেশতী জেওর’ পূর্ণ –ইহা হজরত থানবীর উর্দু বেহেশতী জেওরের বাংলায় মর্মানুবাদ।

২। ‘কাছদুছ ছাবীল’ –হজরত থানবীর উর্দু কাছদুছ ছাবীলের বঙ্গানুবাদ।

৩। ‘ফরউল ঈমান’ –হজরত থানবীর উর্দু ফরউল ঈমানের বঙ্গানুবাদ।

৪। ‘হাদীছে আরবাইন’ –এবনে দাকীকুল ঈদের ‘আরবাইন’ –এর বঙ্গানুবাদ।

৫। ‘ছাফাইয়ে মোয়ামালাত’ বা হালাল রুযী –হজরত থানবীর উর্দু ছাফাইয়ে মোয়ামালাত-এর বঙ্গানুবাদ।

৬। ‘নামাজের ফজীলত’।

৭। ‘এলমের ফজীলত’।

৮। ‘যিকরের ফজীলত’ ।

৯। ‘তেজারতের ফজীলত’।

১০। ‘তা’লীমুদ্দীন’ –হজরত থানবীর উর্দু ‘তা’লীমুদ্দীন’-এর বঙ্গানুবাদ।

১১। ‘এছলাহে নফছ’।

১২। ‘হায়াতুল মোছলেমীন’ –হজরত থানবীর উর্দু ‘হায়াতুল মোছলেমীন’-এর বঙ্গানুবাদ।

১৩। ‘মোনাজাতে মকবুল’ –হজরত থানবীর ‘মোনাজাতে মকবুল’-এর অনুবাদ।

২১৮। মাওলানা শামছুল হক (মাছিমপুরী)

মাওলানা শামছুল হক ইবনে আলী আজম মোল্লা [আমার ছোট ভাই] –[ আমার পর-দাদা শায়খ ছমী ‘ফরাজী’ মরহুম চরপারবতীর অধিবাসী ছিলেন। সম্ভবতঃ হাজী শরীয়তুল্লাহ ফরিদপুরীর ‘ফারায়েজী’ আন্দোলনে যোগদান করার কারণেই তিনি ‘ফরাজী’ নামে অভিহিত হন। তাঁহার অকাল মৃত্যু ঘটিলে আমার পর-দাদী নেয়াজপুরের শায়খ জান মোহাম্মদ মরহুমের নিকট দ্বিতীয় নেকাহ বসেন। এই ওছীলায় আমার দাদা শায়খ জা’ফর আলী মরহুম নেয়াজপুরে বসতি স্থাপন করেন। তিনি এক পুত্রঃ শায়খ আলী আজন ও দুই কন্যাঃ কমলা খাতুন ও আমীরুন্নেছাকে রাখিয়া অল্প বয়সেই এই দুনিয়া ত্যাগ করেন। আমর বাপজান চারি পুত্রঃ নূর মোহাম্মদ, ছেরাজুল হক, শামছুল হক ও আবদুছ ছালাম এবং তিন কন্যাঃ জোলায়খা বিবি, তৈঞ্জবেন্নেছা ও ফাতেমা খাতুনকে রাখিয়া ১৩৩০ বাং মাত্র ৪৮ বৎসর বয়সেই জান্নাতবাসী হন। প্রথমা ও তৃতীয়া কন্যা তাঁহার কয়েক বৎসর পরই বসন্ত রোগে এন্তেকাল করেন। আমার আম্মা রহীমুন্নেছা খাতুনকে বয়স বর্তমানে (১৩৭১ বাং) ৮৯ বৎসর। তিনি একজন অতি বুদ্ধিমতি ও নেক মহিলা। আমার নানাজান মোহাম্মদ হাতেম মুনশী সাহেব ও তাঁহার পিতা আমজাদ মিয়াজী ছাহেব উভয় বুজুর্গ ব্যক্তি ছিলেন। আমার বাপজান হইতে পর-দাদা পর্যন্ত যাঁহাদের কথা আমরা জানি তাঁহারা সকলেই সরল প্রকৃতির ও নেকচরিত্রের লোক ছিলেন এবং সকলেই অল্প-বিস্তর বাংলা ও আরবী জানিতেন। আল্লাহ তাঁহাদের প্রতি রহমত বর্ষণ করুন। আমার জন্ম ১৩০৭ বাং পৌষ, রবিবার। -নূর মোহাম্মদ] নোয়াখালী জিলার ফেনী মহকুমা ও ফেনী থানার অন্তর্গত নেয়াজপুর গ্রামে ১৩২৫ বাং মোঃ ১৯১৮ ইং এক শায়খ পরিবারে জন্মগ্রহণ করে, অতঃপর ১৩৫৫ বাং মোঃ ১৯৪৮ ইং পার্শ্ববর্তী মাছিমপুর গ্রামে বসতি স্থাপন করে। সে স্থানীয় স্কুলে প্রাইমারী শিক্ষা শেষ করিয়া ১৯৩৫ ইং ফেনী মাদ্রাছায় জমাতে নহমে ভর্তি হয় এবং ১৯৪৩ ইং তথা হইতে প্রথম বিভাগে ফাজেল পাস করে। মাওলানা ওবাইদুল হক, মাওলানা আবদুল হামীদ, মাওলানা আবদুছ ছাত্তার ও মাওলানা ইদ্রীছ ছাহেব প্রমুখ মোদাররেছীন তাহার তথাকার ওস্তাদ।

পরীক্ষার পর ১৯৪৩ ইং সালেই সে উক্ত মাদ্রাছায় মোদাররেছ নিযুক্ত হয় এবং ১৭ বৎসর শিক্ষকতা করার পর ১৯৬০ সালে এক বৎসর ছুটি লইয়া হাটহাজারী মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাছায় হাদীছ অধ্যয়ন করে। মাওলানা মুফতী ফয়জুল্লাহ ছাহেব, মাওলানা আবদুল কায়্যুম, মাওলানা আহমদুল হক ও মাওলানা আবদুল আজীজ প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

বর্তমানে সে মাদ্রাছায় হাদীছের মেশকাত শরীফ ও তিরমিজী শরীফ শিক্ষা দিতেছে।

সে একজন সুবিবেচক, ছুন্নতের অনুসরণে দৃঢ়সংকল্প ও ছূফী প্রকৃতির আলেম। আল্লাহ তা’আলা তাঁহাকে আমার নাজাতের ওছীলা করিবেন বলিয়া আমি আশা করি।

২১৯। মাওলানা শামছুল হক (বিরাহীমপুর)

তিনি ১৯২৫ ইং নোয়াখালী সদর মহকুমাধীন বিরাহীমপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম হাজী ছেরাজুল হক। তিনি স্থানীয় প্রতিষ্ঠানে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করিয়া ৫ বৎসরকাল নোয়াখালী টুমচর মাদ্রাছায় এবং নোয়াখালী ইছলামিয়া মাদ্রাছায় জমাতে ছুয়াম পর্যন্ত শিক্ষা লাভ করেন। অতঃপর তিনি চট্টগ্রাম, হাটহাজারী মুঈনুল ইছলাম হইতে দাওরায়ে তফছীর ও দাওরায়ে হাদীছ পাস করেন। মাওলানা মোহাম্মদ ইয়াকুব, মাওলানা আবদুল কায়্যুম ও মাওলানা আবদুল হাছান প্রমুখ মোহাদ্দেছীন তাঁহার হাদীছের ওস্তাদ।

১৯৫৬ ইং শিক্ষা সমাপ্ত করিয়া তিনি ১ বৎসরকাল নোয়াখালীর টুমচর মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। ১৯৫৭ ইং শিক্ষা সমাপ্ত করিয়া তিনি ১ বৎসরকাল নোয়াখালীর টুমচর মাদ্রাছায় শিক্ষকতা করেন। ১৯৫৭ ইং তিনি বরিশালের পাঙ্গাশিয়া আলিয়া মাদ্রাছায় হাদীছের অধ্যাপক নিযুক্ত হন।

 

About মাওলানা নূর মোহাম্মদ আ’জমী (রঃ)