আমরা কি চাই কেন চাই কেন চাই কিভাবে চাই?

আমরা কি চাই কেন চাই কেন চাই কিভাবে চাই?

প্রাসঙ্গিক কথা

প্রতিষ্ঠার পর থেকে আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের অসীম রহমতে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির এখন বাংলাদেশের জনগণ ও ছাত্র সমাজের কাছে একটি সু-পরিচিত ছাত্র সংগঠন। শিবিরের পরিচিতি বৃদ্ধির সাথে সাথে এর প্রতি আগ্রহ এবং ঔৎসুক্যও বেড়ে চলেছে। ইসলামী আদর্শভিত্তিক একটি গঠনমূলক ছাত্র সংগঠন হিসেবে ছাত্রশিবিরের পূর্ণাঙ্গ পরিচয় তুলে ধরা তাই সময়ের দাবী। এ পুস্তিকায় বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির প্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট, লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ও কমূসূচী অতি সংক্ষিপ্ত পরিসরে তুলে ধরা হয়েছে। বইটি পড়লে যে কোন পাঠক ছাত্রশিবির সম্পর্কে একটা সুস্পষ্ট ধারণা লাভ করতে পারবেন বলে আমরা আশা রাখি। আল্লাহ আমাদের সকলকে তার দ্বীন প্রতিষ্ঠায় বলিষ্ঠ ভূমিকা পালনের তাওফিক দান করুন। আমীন।

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

মানুষের মর্যাদা

আমরা মানুষ। সৃষ্টির সেরা জীব বা আশরাফুল মাখলুকাত। কিন্তু কোন মানুষকে এই শ্রেষ্ঠত্বের মর্যাদা দেয়া হয়েছে?

মানুষকে দেয়া হয়েছে বিবেক-বুদ্ধি তথা ভালো-মন্দ যাচাইয়ের বিচার করার ক্ষমতা। তাকে দেয়া হয়েছে চিন্তা ও কর্মের স্বাধীনতা। সুতরাং মুক্ত ও বন্ধনহীন জীবনে মানুষ যদি বিবেক ও যুক্তিবোধের দ্বারা পরিচালিত হয় তাহলেই মানুষকে অন্যান্য প্রাণীর চেয়ে অধিকতর মর্যাদা সম্পন্ন বলা যায়।

মানুষ সৃষ্টির উদ্দেশ্য

প্রতিটি সৃষ্টিকর্মের পিছনে থাকে সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য। এক সুমহান উদ্দেশ্য সাধনের জন্যই আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন। আর তা হলো জীবনে মানুষ আল্লাহর প্রতিনিধি ভূমিকা পালন করবে।

আল্লাহর পক্ষ থেকে মহান দায়িত্ব দিয়ে দুনিয়ায় আবির্ভূত হওয়ার কারণেই মানুষকে এই মর্যাদায় সমাসীন করা হয়েছে। কিন্তু লাগামহীন স্বাধীনতায় গা ভাসিয়ে দিয়ে সে যদি বিবেকের সীমা অতিক্রম করে বিচ্যুত হয় তার মহান দায়িত্ব পালন থেকে তখন তার মর্যাদা হয় ভূলুণ্ঠিত। কোরানের ভাষায়, “এরা হচ্ছে পশুর সমতুল্য বরং তার চেয়েও নিকৃষ্ট”।

মানুষের গন্তব্যস্থল

এই পৃথিবীর আমরা কেউই স্থায়ী বাসিন্দা নই। এখানে চলছে জন্ম মৃত্যুর নিরন্তর খেলা। দুনিয়ার জীবনই শেষ নয়। মৃত্যুল পরে মানুষকে প্রবেশ করতে হবে আখেরাত নামক এক অনন্ত জীবনে। সেখানে প্রতিটি মানুষকে তার কর্মের জন্য জবাবদিহি করতে হবে। মহান আল্লাহ তায়ালা দুনিয়ার জীবনে মানুষের সকল কর্মকাণ্ড রেকর্ডের ব্যবস্থা করেছেন এবং সেদিন উপস্থাপন করা হবে। পার্থিব জীবনে যারা সঠিকভাবে আল্লাহর প্রতিনিধিত্বের দায়িত্ব পালন করবে তথা তাঁর নির্দেশিত পথে জীবন পরিচালনা করবে তাদের জন্য রয়েছে পুরষ্কার। আর যারা খোদায়ী বিধান লঙ্ঘন করে সমাজ জীবনে বিপর্যয় সৃষ্টি করবে তাদের জন্য রয়েছে কঠিন শাস্তি, এবং দাউ দাউ করে জ্বলা জাহান্নামের ভয়াবহ আযাবের দুঃসংবাদ। যৎকালের এ পৃথিবীতে মানুষের সাময়িক আসা-যাওয়ার যে বিচিত্র মহড়া চলছে তা চিন্তাশীল প্রতিটি মানুষকেই ভাবিয়ে তোলে। সুতরাং মানব জীবনের গন্তব্যস্থল সম্পর্কে যার সঠিক উপলব্ধি তাকে অবশ্যই আল্লাহর নির্দেশিত পথে জীবন পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

About শিবির অনলাইন লাইব্রেরী